খবরগানবিনোদন

‘তুই কবে মরবি?’ KK-র প্রয়াণের পর নেটপাড়ায় চরম ট্রোলড বাদশাহ! অবশেষে নিজেই মুখ খুললেন গায়ক

গতমঙ্গল বার রাতেই প্রয়াত হয়েছেন বিখ্যাত গায়ক কেকে (KK)। আজ তার দেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছে মুম্বাইয়ে। সেখানেই লক্ষ লক্ষ অনুগামীরা শেষ দেখা দেখা চিরবিদায় জানালেন গায়ক কেকে তথা কৃষ্ণকুমার কুন্নাতকে। সোমবার কলকাতায় শো করতে এসেছিলেন তিনি। মঙ্গলবার নজরুল মঞ্চে চলছিল শো। সেখান থেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এরপর তাকে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়, এরপর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়ে।

এদিন গায়কের মৃত্যুর পরেই সোশ্যাল মিডিয়াতে শোকবার্তা চেয়ে যায়। কেউই প্রিয় গায়কের এমন আকস্মিক চলে যাওয়াটা মেনে নিতে পারেননি। সাধারণ নেটিজেন থেকে শুরু করে সেলিব্রিটিরা ও সংগীত মহলেরা। বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক বাদশাহ (Badshah) ও এদিন শোক প্রকাশ করেছিলেন।

Badshah Trolled on social media

কিন্তু আজকাল সোশ্যাল মিডিয়াতে ট্রোলিং বিষয়টা এতটাই বেড়ে গিয়েছে যে কেকের মৃত্যুর পরেও সক্রিয় রয়েছে ট্রোলারেরা। যখন গোটা দেশের কোটি কোটি ভক্তরা প্রিয় গায়ককে হারিয়ে শোকস্তব্ধ তখন গায়ক তথা র‍্যাপার বাদশাকে আক্রমণ করে তাঁর মৃত্যু কামনা করেছেন একনেটিজেন! যেটাদেখে রীতিমত অবাক নেটিজেনরা।

কেকের মৃত্যুর পর একটি আবেগঘন পোস্ট শেয়ার করেন বাদশাহ। সেই পোস্টেই ওই ব্যক্তি লেখেন, ‘তুই কবে মরবি ?’ শুধু তাই নয় সাথে অশ্লীল ভাষার প্রয়োগও করেছেন। এবার এই ট্রোলের যোগ্য জবাব দিলেন বাদশাহ। ট্রোলারের সেই মন্তব্য নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে শেয়ার করেছেন বাদশাহ।

এরপর বাদশাহ লিখেছেন, ‘আপনাদের জানাতে ইচ্ছা হয়, আমাদের জীবন কেমন। কেউ কেউ আমাদের সাথে একবার দেখা করতে চায় তো কেউ আবার মৃত্যু কামনা পর্যন্ত করে’। বাদশাহর প্রতি এমন কুরুচিকর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছেন নেটিজেনরা। নেটিজেনদের মতে কোনো শিল্পীকেই এভাবে অপমান করাটা উচিত নয়। আর যখন সবাই কেকের মত একজন গায়কের মৃত্যুশোক কাটিয়ে উঠছেন তখন এই ধরনের মন্তব্য নিন্দনীয়।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার কেকের মৃত্যুর পর থেকেই শোকের ছায়া নেমে এসেছে সর্বত্র। কিভাবে গায়কের মৃত্যু হল সেই নিয়ে অনেক জলঘোলা হয়েছে ইতিমধ্যেই। পুলিশ অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা করে তদন্ত করছে। সাথে সামনে এসেছে বিস্ফোরক কিছু তথ্য। মাত্রাতিরিক্ত ভিড়, অগ্নি নির্বাপক গ্যাস স্প্রে করা থেকে সময় নষ্টের মত অভিযোগ উঠছে কেকের মৃত্যুকে ঘিরে।

Related Articles

Back to top button