গসিপবিনোদনসিনেমা

সম্পত্তির লোভেই অভিষেককে ছেড়ে ৬ মাসের মাথায় বিয়ে করেছিলেন করিশ্মা, সুখ মেলেনি তাতেও

বলিউড মানেই ঝাঁচকচকে গ্লামারাস ওয়ার্ল্ড। যার অধিকাংশটাই মোড়া থাকে অর্থ,সম্পত্তি আর খ্যাতি চাকচিক্যে। আর তাই ইন্ডাস্ট্রিতে প্রতিনিয়ত যেমন সম্পর্ক তৈরি হচ্ছে, তেমনি সম্পর্ক ভাঙছেও। এমন অনেক সেলিব্রেটিই আছেন যাঁদের সম্পর্ক বিয়ে পর্যন্ত গড়িয়ে শেষটা সুন্দর হয়নি। পরিণতি পাওয়ার আগেই ভেঙে দু’টুকরো হয়ে গিয়েছে দুটি মন।

এককালে বলিউডের এমনই এক বহুচর্চিত জুটি ছিলেন বচ্চন পরিবারের ছেলে অভিষেক বচ্চন (Abhishek Bacchan) আর অন্য দিকে ছিলেন কাপুর পরিবারের মেয়ে করিশমা কাপুর (Karishma Kapoor)। নিজের থেকে দুবছরের বড়ো করিশ্মার সাথে চুটিয়ে প্রেম করছেন অভিষেক। সে সময় তাঁদের প্রেমকাহিনী ইন্ডাস্ট্রির কারওরই অজানা ছিল না। সেসময় অভিষেক সবে কেরিয়ারের মধ্য গগনে। আর ততদিনে করিশ্মা হয়ে উঠেছেন বলিউডের প্রথম সারির নায়িকা।

তাঁদের সম্পর্ক এতদূর গড়িয়ে ছিল যে বচ্চন পরিবারের তরফেও করিশ্মাকে পুত্র বধু হিসাবে মেনে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ভেস্তে যায় বিয়ে। ভাঁটা পড়ে অভিষেক করিশ্মার দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্কে। কারণ অভিষেক,বচ্চন পরিবারের সন্তান হলেও আগামী দিনে মেয়ের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আপত্তি তুলেছিলেন করিশ্মার মা ববিতা।

অভিষেকের উপার্জন,আর কেরিয়ার নিয়ে চিন্তিত ছিলেন তিনি। তাই শেষ মেষ তিনি তাঁর মেয়ের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করতে শর্ত দেন বচ্চন পরিবারকে। জানান তাঁদের বিয়ের আগেই অভিষেক এবং তাঁর মেয়ের নামে তাঁদের ভাগের সম্পত্তি লিখে দিতে হবে। তবে ববিতার এই শর্তে রাজি হয়নি বচ্চন পরিবার। আর এই কারণেই সেসময় অভিষেক আর করিশ্মার বিয়ে ভেঙে যায়।

আর অভিষেকের সাথে বিয়ে ভেঙে যাওয়ার ৬ মাসের মধ্যেই অভিষেককে জবাব দিতে ব্যবসায়ী সঞ্জয় কাপুরকে বিয়ে করেন করিশ্মা। পরবর্তীতে অভিষেকও বিশ্ব সুন্দরী ঐশ্বর্যকে ভালোবেসে বিয়ে। বর্তমানে তাঁরা সুখে সংসার করলেও। বিবাহিত জীবন সুখের হয়নি করিশ্মার। বিয়ের কয়েক বছরের মধ্যেই তাঁরা আলাদা থাকতে শুরু করেন।বিবাহবিচ্ছেদের জন্য আবেদন জানিয়ে স্বামী সঞ্জয়ের বিরুদ্ধে নানা রকম অভিযোগ আনেন তিনি।

Related Articles

Back to top button