খবরবিনোদনসিনেমা

গ্রীষ্মের দাবদাহে কমেনি চলচ্চিত্র উৎসবের জৌলুস! সত্যজিৎময় Kiff-এ বিশেষ অতিথি শত্রুঘ্ন সিনহা

করোনা মহামারী এখন আমাদের রোজকার জীবনের অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে এবছর আর করোনার জুজু দিয়ে দমিয়ে রাখা যায়নি বাংলার সিনেমা পাগল মানুদের উৎসাহকে। প্রসঙ্গত রাজনীতি আর বিনোদনের সম্পর্ক আজকের নয়। ইতিহাসের পাতা ওল্টালে এমন অনেক উদাহরণ পাওয়া যাবে যেখানে দেখা যাবে রাজনীতি আর বিনোদন মিলেমিশে একাকার।

এই গতকাল বিকেলেই ২৭ তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের (27th Kolkata International Film Festival)উদ্বোধন করতে হাজির হয়েছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। একপাশে টলিউডের ইন্ডাস্ট্রি বলে পরিচিত প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (Prosenjit Chatterjee) আর একপাশে সদ্য উপনির্বাচন জয়ী শত্রুঘ্ন সিনহাকে (Shatrughna Sinha) নিয়ে প্রদীপ জ্বালিয়ে এদিন চলচ্চিত্র উৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী। দেখতে গেলে এবারের সত্যজিৎময় চলচ্চিত্র উৎসবে শত্রুঘ্ন সিনহাই ছিলেন প্রধান অতিথি।

প্রসঙ্গত এ বছর বিশ্ববরেণ্য পরিচালক সত্যজির রায়ের জন্ম শতবর্ষপূর্তি। তাই এবছর তাঁকে উৎসর্গ করেই করা হয়েছে এই সিনেমা পার্বণের বিশাল আয়োজন। এদিনের অনুষ্ঠানের শুরুতেই সত্যজিৎ রায়ের (Satyajit Ray) কালজয়ী সৃষ্টি গুপি গাইন, বাঘা বাইনের সাজে মঞ্চে হাজির হয়ে অনুষ্ঠানের সুর বেঁধে দদিয়েছিলেন অভিনেতা সাহেব চট্টোপাধ্যায় ও বিশ্বনাথ বসু। এবছর চলচ্চিত্র উৎসবের সূচনা হয় সত্যজিৎ রায়ের ‘অরণ্যের দিন রাত্রি’ (Aranyer Din Ratri) ছবি দেখিয়ে।


এদিন বিশেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয় সেইসব শিল্পী দের যারা আজ আর আমাদের মধ্যে নেই। তাঁদের মধ্যে অন্যতম গীতশ্রী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়,বাপ্পি লাহিড়ি, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।এদিনের এই অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় এবং অভিনেত্রী জুন মালিয়া। এবছর থালি গার্ল হয়ে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে মোমবাতির আলো তুলে দিতে দেখা গেল অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এরপর একে একে নৃত্য পরিবেশন করতে দেখা যায় শুভশ্রী, দিতিপ্রিয়া, কৌশানীদের। মহামারি কালেও কমেনি কলকাতার চলচ্চিত্র উৎসবের জৌলুস।

 

এ প্রসঙ্গে এদিন কিংবদন্তি পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের বলা কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে গৌতম ঘোষ (Gautam Ghosh) বলেন ‘মোমবাতির আলো তুলে ‘মানিকদা’ বলেছিলেন, শহরের হাজারও সমস্যা আছে, খামতি আছে। কিন্তু উৎসাহে এতটুকু খামতি নেই!’ মঞ্চে উপস্থিত সত্যজিৎ-পুত্র সন্দীপ রায় (Sandip Ray) কৃতজ্ঞতার সুরে বলেন ‘আপনারা যে ভাবে আমার বাবাকে মাথায় করে রেখেছেন, তাতে আমি ও রায় পরিবার আপ্লুত।’ প্রসঙ্গত এবারের চলচ্চিত্র উৎসবের ফোকাস কান্ট্রি হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছিল ফিনল্যান্ডকে।

Related Articles

Back to top button