গসিপবিনোদন

ফালতু ছবি তো ফ্লপ হবেই, দর্শকেরা ভালোর কদর ঠিকই করে! আমির-অক্ষয়দের ধুয়ে দিলেন অনুপম খের

চলতি বছরটা বলিউডের (Bollywood) জন্য একেবারেই ভালো না গেলেও, অনুপম খেরের (Anupam Kher) জন্য কিন্তু দুর্দান্ত যাচ্ছে। ইন্ডাস্ট্রির এই বর্ষীয়ান অভিনেতার ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’, ‘কার্তিকেয় ২’- এই দুই ছবিই বক্স অফিসে দারুণ সফল হয়েছে। এবার এই বছরের তৃতীয় ছবি নিয়ে আসছেন তিনি। সুরজ বরজাতিয়া পরিচালিত ‘উঁচাই’য়ে অনুপমের সঙ্গেই অভিনয় করেছেন অমিতাভ বচ্চন, বোম্যান ইরানি এবং পরিণীতি চোপড়া।

তবে এই ছবি রিলিজের আগেই বলিউডের সাম্প্রতিক বেহাল দশা নিয়ে মুখ খুলেছেন অনুপম। অভিনেতা সাফ সাফ জানিয়েছেন, তাঁর মনে হয় না দর্শকদের নেগেটিভিটির জন্য বলিউডের আজ এই দশা। বরং ভালো ছবি তৈরি করতে পারছে না বলেই আজ ইন্ডাস্ট্রি ধুঁকছে।

Anupam Kher speaking

গত কয়েক মাসে আমির খান, অক্ষয় কুমার থেকে শুরু করে রণবীর কাপুর, সঞ্জয় দত্ত- বলিউডের একাধিক সুপারস্টারের ছবি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়েছে। অনেক তারকাই নিজেদের ছবির ব্যর্থতার জন্য ‘বয়কট বলিউড’ ট্রেন্ডকে দোষারোপ করলেও অনুপম তা মানতে নারাজ। তবে অনুপমের কথা শোনার পর নেটিজেনদের একাংশের অনুমান, তিনি হয়তো নাম না করেই এই অভিনেতাদের একেবারে ধুয়ে দিয়েছেন।

সম্প্রতি একটি নামী সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আলাপচারিতার সময় অনুপম বলেন, ‘আমার মনে হয় গত দু’বছরে মানুষ অনেক বদলে গিয়েছে। কোভিড এবং লকডাউনের সৌজন্যে মানুষ একটি পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে গিয়েছে। যা কিছু নকল আর তাঁদের স্পর্শ করে না। যা কিছু সত্যি তা তাঁরা ঠিক বেছে নেন। এটা আমাদের জন্য খুব ভালো একটা জিনিস। আমাদের আরও একবার ভাবা উচিত। মানুষ নিজেদের দুঃখ, কষ্টের মধ্যে দিয়ে গিয়েছে। তাই তাঁদের এখন নকল কোনও কিছুই ভালোলাগবে না’।

Anupam Kher sad

শুধু এটুকুতেই থামেননি অভিনেতা। অনুপমের মতে, গত ২ বছরে মানুষ দেশ-বিদেশের বহু সিনেমা দেখেছে। তাই এখন সেটিও দর্শকদের কাছে একটি ভালো অপশন। বলিউডের এই বর্ষীয়ান অভিনেতা এরপর নিজের আগামী ছবি ‘উঁচাই’ নিয়ে বলেন, ‘আমি একটাও নেতিবাচক কমেন্ট দেখিনি। কেউ এটাও বলেনি যে ‘এই তিন বুড়ো এখানে কী করছে’’।

Uunchai Movie

সব শেষে অনুপম চলতি বছরে তাঁর নিজের সাফল্যের উদাহরণ দিয়ে বলেন, ‘সিনেমা ভালো হলে বক্স অফিসে ভালো ব্যবসা করবেই। কার্তিকেয়া ২ সবচেয়ে বড় উদাহরণ। এটা ৫০টি সিনেমা হলে রিলিজ করেছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২০০টি স্ক্রিনে চলেছিল। একই জিনিস কানতারার সঙ্গেও হয়েছে। এমন কেন হচ্ছে? কারণ এটা সত্যিকারের সিনেমা। আমি গর্বিত হয়ে বলতে পারি দ্য কাশ্মীর ফাইলস ৩৫০ কোটি এবং কার্তিকেয়া ২ ১৩০ কোটির ব্যবসা করেছে। আজ আমি ৪৮০ কোটির গদিতে বসে আছি’।

Related Articles

Back to top button