গসিপবিনোদন

প্রয়াত হলেও সকলের হৃদয়ে অমর সুশান্ত, স্বপ্ন ছিল শাহরুখের সাথে ‘মন্নতে’ পার্টি করার

প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত (Sushant Singh Rajput) যে শাহরুখ খানের (Shah Rukh Khan) ঠিক কতটা বড় ভক্ত তা জীবদ্দশায় তিনি বারবার বলেছেন। ছেলেবেলায় বলিউড ‘বাদশা’র ছবির একনিষ্ঠ দর্শক ছিলেন তিনি। তাই আর পাঁচজন শাহরুখ অনুরাগীর মতো সুশান্তও তাঁর বাড়ি ‘মন্নত’এর ভিতরে যাওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। নিজের অদম্য ইচ্ছাশক্তি এবং পারফরম্যান্সের মাধ্যমে সেই স্বপ্ন অবশ্য পূরণও করেছিলেন পর্দার মহেন্দ্র সিং ধোনি (MS Dhoni)।

২০১৩ সালে এক সাক্ষাৎকারের সময় সুশান্ত (Sushant Singh Rajput) নিজে ‘বাদশা’র সঙ্গে তাঁর পার্টি করতে চাওয়ার আকাঙ্খার কথা ফাঁস করেছিলেন। ‘কাই পো চে’ (Kai Po Che) খ্যাত অভিনেতা বলেন, ‘বড় হওয়ার সময় আমি প্রচুর যশ রাজ ফিল্মস দেখেছি, বিশেষত শাহরুখ খানের ছবি। আমি ওনার ছবির অনেক বড় ভক্ত ছিলাম। তবে আমি কখনও ওনার দ্যুতিতে হারিয়ে যাইনি। কিন্তু আমার মনে আছে আমি একবার আমার বন্ধুদের সঙ্গে বান্দ্রায় শাহরুখের বাড়ির সামনের একটি কফির দোকানে বসেছিলাম। ওনার বাড়িতে সেদিন একটি পার্টি ছিল, সেই কারণে দেখছিলাম অনেক বড় গাড়ি সেখানে প্রবেশ করছে। আমি তখন নিজেকে বলেছিলাম, একদিন আমি ভিতরে যাব এবং ওনার সঙ্গে পার্টি করব’।

সুশান্ত (Sushant Singh Rajput) এরপর সেই সাক্ষাৎকারেই জানান, কয়েক বছর আগে দেখা সেই স্বপ্ন ২০১৩ সালের ঈদ’এ পূরণ হয়েছিল। শাহরুখের (Shah Rukh Khan) তরফ থেকে ‘ঈদি’ হিসেবে সুশান্ত পেয়েছিলেন পার্টিতে যাওয়ার আমন্ত্রণ। ব্যস, সেই সঙ্গেই এসআরকে’র (SRK) সঙ্গে পার্টি করার বহু বছরের স্বপ্ন সত্যি হয় পর্দার মাহির।

বলিউডের অন্যতম প্রতিভাবান অভিনেতা সুশান্তের 4 কেরিয়ার শুরু হয়েছিল টেলিভিশনের হাত ধরে। ‘পবিত্র রিশ্তা’ ধারাবাহিকে ‘মানব’এর চরিত্রে অভিনয় করে বিপুল জনপ্রিয়তা পাওয়ার সঙ্গেই তাঁর সামনে খুলে যায় বলিউডের দরজা। ২০১৩ সালে ‘কাই পো চে’ ছবির মাধ্যমে ডেবিউ হয়েছিল সুশান্তের। এরপর ‘শুদ্ধ দেশি রোম্যান্স’, ‘পিকে’, ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বক্সী’, ‘এমএস ধোনিঃ দ্য আনটোল্ড স্টোরি’, ‘রাবতা’, ‘কেদারনাথ’, ‘সোনচিড়িয়া’, ‘ড্রাইভ’ এবং ‘ছিছোড়ে’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি।

সুশান্তের শেষ ছবি ‘দিল বেচারা’ তাঁর মৃত্যুর পর মুক্তি পেয়েছিল। ২০২০ সালের ১৪ জুন ৩৪ বছর বয়সে প্রয়াত হয়েছিলেন এই প্রতিভাবান অভিনেতা। সুশান্তের মুম্বইয়ের বাড়ি থেকে তাঁর দেহ উদ্ধার করা হয়েছিল। তাঁর মৃত্যুর কারণ নিয়ে তৈরি হয়েছিল ধোঁয়াশা। মৃত্যুর দু’বছর পরও কিন্তু সেই ধোঁয়াশা খুব একটা কেটেছে তা বলা যায় না।

Related Articles

Back to top button