ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট পার্টিতে ট্রেতে ড্র্যাগ অফার করা হয়। বলিউডে মাদকচক্র নিয়ে বিস্ফোরক মুকেশ খান্না ও শিল্পা পান্ডে।


জনপ্রিয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর তা আত্মহত্যা নাকি খুনের তদন্ত শুরু হয়। তদন্ত যত এগোতে থাকে ততই ঘনীভূত হতে থাকে রহস্য। মেলে ড্র্যাগ সংযোগ,যার জেরে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো তদন্তের ভার নেয়। এর পর মূল অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী ও তার ভাইকে গ্রেফতারও করা হয়। এরপর থেকেই বলিউডের বহু সেলেব্রিটিকেই এনসিবির(NCB) জেরার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। এবার  এই প্রসঙ্গেই প্রকাশ্যে এল শক্তিমানের জন্য খ্যাত মুকেশ খান্না ও বিগ বস খ্যাত শিল্প শিন্দের মন্তব্য।

যেমনটা জানা যাচ্ছে মুকেশ খান্না ড্রাগসের ব্যাপারে বলেছেন “নতুন প্রজন্ম নিজেকে বেশ কুল দেখানোর জন্য মাদক সেবন শুরু করে।”এরপর  বলিউডের ড্রাগ  পার্টির কথা বলতে গিয়ে অভিনেতা বলেছেন “আমি নিজে কখনো এরকম পার্টিতে যায়নি,তবে লোকের মুখে যেটা শুনেছি পার্টিতে ট্রে তে করে মাদক নিয়ে ঘুরে বেড়ায় ও জিজ্ঞাসা করে কোন মাদক চাই। ”

বলিউডে ড্রাগস চক্র যদি থাকে সেক্ষেত্রে  ড্রাগ মাফিয়াও অবশ্যই  আছে। এই প্রসঙ্গে মুকেশ খান্না বলেন “আমার মনে হয় ইটা কোনো ২-৪ জন ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব না, বলিউড পার্টিতে খাবার সরবরাহ তো সাধারণ ব্যাপার। কিন্তু এই মাদক চক্র সত্যি বড় চিন্তার ব্যাপার। তার চেয়ে বড় কথা হল পার্টিতে কি ধরণের ড্রাগ দেওয়া হয়  সেটা জানতে হবে। এই মাদক আমাদের যুবসম্প্রদায়কে প্রভাবিত করছে। এটা মোটেও লুকানোর জিনিস নয়, শিল্পীদের বুঝতে হবে এটা মোটেই কোনো ভালো কাজ নয়।

এখানেই শেষ নয় ,মুকেশ খান্না আরো বলেন “শাহরুখ খান একবার বলেছিলেন যে আমরা কোনো মহান মানুষ নই, আমি বলতাম শাহরুখ তুমি মহান মানুষ। তোমাকে লোকে অনুসরণ করে গুলশানকে ফলো করে আমাকে বা শক্তিমানকে নয়। মানুষের নিজের দায়িত্ব বোঝা উচিত।

মুখেশ খান্নার মত একই ভাবে টিভি সিরিয়াল অভিনেত্রী শিল্পা শিন্দেও ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট গুলির মাদকচক্রে ভূমিকার কথা বলেছেন। একটি সাক্ষাৎকারে টাইমস নাও কে তিনি বলেছেন, ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট সংস্থাগুলি অভিনেতা বা অভিনেত্রীকে বাইরে নিয়ে গেলে তাদের প্রজনের খেয়াল রাখে।ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানিগুলি পোগ্রামের জন্য কোনো অভিনেতা অভিনেত্রীর কাছে গেলে, তারা জানতে চায় কি কি সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যাবে। যদিও এটা সম্পূর্ণ ব্যক্তি বিশেষের ওপর নির্ভর করে।

এই ঘটনার জন্য আমি পুরোপুরি ইভেন্ট  ম্যানেজমেন্ট সংস্থাগুলিকে দশ দেবনা। বর্তমানে KWON এর নাম সামনে এসেছে তবে শুধু যে KWON ই আছে তা নয়। এরোকম অনেক ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি  আছে। এর প্রত্যেকেই বাইরে শুটিং এ বা পোগ্রামে আর্টিস্টদের প্রয়োজনের খেয়াল রাখেন। শিল্পা বলেন তিনি নিজেই বলিউডে অনেককেই দেখেছেন অবৈধ কাজকর্ম করতে। এমনকি বলিউডে এমন ঘটনাও প্রায়শ ঘটে রয়েছে যেখানে অনেকে একসাথে এসে মাদক নিতে শুরু করে। বলিউড পার্টিগুলিতে এটা বলতে গেলে খুব সাধারণ ব্যাপার।


Like it? Share with your friends!

760
760 points